নিরাপত্তা বলয়ে চট্টগ্রাম, নাশকতার আশঙ্কায় সড়ক বন্ধ

405
শেয়ার

আগামীকাল ৮ ফেব্রুয়ারী বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে রায় ঘোষণাকে ঘিরে টান টান উত্তেজনা বিরাজ করছে চট্টগ্রাম জুড়ে। চলছে পুলিশের গণ গ্রেফতার।

মঙ্গলবার থেকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে চলছে যানবাহন তল্লাশী। এছাড়া রাষ্ট্রায়াত্ত তিনটি তেল স্থাপনার নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। গুরুত্বপূর্ন এসব স্থাপনা রক্ষায় নগরীর পতেঙ্গা থানার সিমেন্ট ক্রসিং থেকে বিমানবন্দর সড়ক দুদিন বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে চট্টগ্রাম নগর পুলিশ।

বিশেষ এ অভিযানে যানবাহন থেকে কোন অস্ত্র বা বিস্ফোরক উদ্ধার করতে না পারলেও গতকাল থেকে নগরী ও জেলায় অভিযান চালিয়ে পুলিশ শতাধিক বিএনপি জামায়াতের নেতাকর্মীকে আটক করেছে।

এদিকে সিএমপির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে- চট্টগ্রাম মহানগরীতে যে কোন অবাঞ্চিত ব্যক্তির প্রবেশ, অস্ত্র, গোলাবারুদ, বিস্ফোরক দ্রব্য, তলোয়ার, বর্শা, বন্দুুক, ছোরা বা লাঠি বহন, ইট পাথর বা নিক্ষেপযোগ্য কোন কিছু বহন সম্পূর্ণরূপে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেন নগর পুলিশ কমিশনার ইকবাল বাহার।

এছাড়া অপর এক আদেশে ৭ ফেব্রুয়ারী বিকাল ৪ থেকে আজ ৮ ফেব্রুয়ারী রাত ১০ টা পর্যন্ত নগরীর সিমেন্ট ক্রসিং থেকে পতেঙ্গা ১১ নং ঘাট(মেরিন একাডেমী ঘাট) পর্যন্ত সকল প্রকার যানবাহন চলাচল বন্ধ রাখার ঘোষনা দেয়া হয়েছে।

আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, সেনা, নৌ, বিমান বাহিনী এবং ঐ এলাকার সংশ্লিষ্ট অফিসের যানবাহনের জন্য এই নির্দেশনা প্রযোজ্য হবে না বলে সিএমপির বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ্য করা হয়েছে।

মহাসড়কে যানবাহনে তল্লাশীর বিষয়ে জানতে চাইলে হাইওয়ে পুলিশের বারআউলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আহসান হাবিব বলেন, ‘উপরের নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা এই বিশেষ অভিযান পরিচালনা করেছি। এতে কাউকে আটক কিংবা অবৈধ কোনো কিছু উদ্ধার করা হয়নি।

এদিকে চট্টগ্রাম জেলার বিভিন্ন উপজেলায় বিশেষ অভিযান চালিয়ে বিএনপির ১১৯ নেতা-কর্মীসহ মোট ২১২ জনকে আটক করেছে পুলিশ। অভিযানে একটি এলজি ও তিনটি ককটেল উদ্ধার করা হয় বলে দাবি পুলিশের। মঙ্গলবার দিন ও রাতভর এই অভিযান চালানো হয়। অভিযানে বিএনপির ১১৯, জামায়াতের ২, ওয়ারেন্টভুক্ত ৭৭, অন্যান্য ৪ আর নিয়মিত মামলার ৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

মন্তব্য করুন

comments