প্রেমিকা নিয়ে দ্বন্দ্বে যুবক খুন

92
শেয়ার

প্রেমিকাকে এককভাবে পেতে যুবককে খুন করার ঘটনা ঘটেছে চট্টগ্রামের রাউজান উপজেলায়। সুমি আকতার নামের এক গার্মেন্টস কর্মীর দুই প্রেমিকের মধ্যে একজন ইকবাল (২০) হত্যা করে নেছার উদ্দিন (২১)নামে অন্য প্রেমিককে।

হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত খুনি ইকবাল (২০) কে রাঙ্গামাটি জেলার মাইনি থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, সুমি আকতার নামের ওই গার্মেন্টস কর্মীর সঙ্গে ইকবালের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। পরে সুমি আকতার নেছার উদ্দিনের প্রেমে পড়ে। এটি সহ্য করতে না পেরে নেছার উদ্দিনকে হত্যা করে ইকবাল।

শনিবার (২৭ জানুয়ারি) দুপুরে রাউজান উপজেলার কলমপতি এলাকার কর্ণফুলী ফার্ম থেকে রাউজান থানা পুলিশ এক যুবকের গলিত লাশ উদ্বার করে। লাশ উদ্ধারের পর চট্টগ্রাম নগরীর পতেঙ্গা কাটগড় এলাকা থেকে নিখোঁজ হওয়া ষ্টুডিও দোকানের কর্মচারী নেছার উদ্দিনের স্বজনের এসে উদ্ধার করা লাশ নেছারের বলে সনাক্ত করে।

ষ্টুডিও দোকানের কর্মচারী নেছার উদ্দিন গত ১৬ জানুয়ারী নিখোজঁ হয়। নেছার উদ্দিন নিখোঁজের পর তার স্বজনেরা পতেঙ্গা থানায় নিখোঁজ ডাইরী করে। জানা যায়,নেছার উদ্দিনের সাথে গামেন্টস কর্মী সুমি আকতারের প্রেমের সর্ম্পক ছিল। সুমি আকতারের আত্মীয় বাড়ী রাউজানের ডাবুয়া ইউনিয়নের হিংগলা সুন্দর পাড়া এলাকার মৃত আলাউদ্দিনের পুত্র ইকবালের সাথে ও সুমি আকতারের প্রেমের সর্ম্পক ছিল। প্রেমিকা সুমি আকতারের সাথে নেছার প্রেমের সর্ম্পক করায় নেছারকে রাউজানে ফুসলিয়ে এনে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করে তার লাশ রাউজানের কলমপতি এলাকার কর্ণফুলী ফার্মের টিলার নির্জন স্থানে ফেলে খুনি ইকবাল এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়।

শনিবার নেছারের লাশ উদ্ধার করার পর রাউজান থানা পুলিশ খুনি ইকবালের ফুফাতে ভাই রাউজান ফকিরহাট বাজারের অনামিকা ষ্টোরের কর্মচারী আজিজকে আটক করে ইকবালের ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদ করে। আজিজের দেওয়া তথ্য অনুসারে রাউজান থানার এস আই নুর নবী রাউজান থানার একদল পুলিশ নিয়ে রাঙ্গামাটি জেলার মাইনি এলাকা থেকে ইকবালকে গ্রেফতার করে।

নেছার উদ্দিনের হত্যাকান্ডের ঘটনার ব্যাপারে রাউজান থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান রাউজান থানার ওসি কেফায়েত উল্লাহ।নিহত নেছার উদ্দিন (২১) চট্টগ্রামের বাঁশখালী এলাকার মোক্তার আহম্মদের পুত্র।

মন্তব্য করুন

comments