X

হয়রানির প্রতিবাদে দিনভর বন্ধ ওষুধের দোকান

চট্টগ্রাম মহানগরীর সবগুলো দোকান বন্ধ রেখে ধর্মঘট পালন করেছে পাইকারি ও খুচরা ওষুধ ব্যবসায়ীরা। র‌্যাব ও ওষুধ প্রশাসনের হয়রানির প্রতিবাদে সোমবার সকাল থেকে আকস্মিক ধর্মঘট শুরু করে ব্যবসায়ীরা। তবে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আশপাশের ওষুধের দোকানগুলো ধর্মঘটের আওতামুক্ত ছিল।বাংলাদেশ কেমিস্ট অ্যান্ড ড্রাগিস্ট সমিতির চট্টগ্রাম জেলা শাখা আকস্মিক এই ধর্মঘটের ডাক দেয়।ফলে ওষুধ কিনতে আসা লোকজন প্রয়োজনীয় ওষুধের জন্য নগরীর বিভিন্ন বাজারে দিনভর ছুটোছুটি শুরু করে।

সমিতির সাধারণ সম্পাদক আশীষ আচার্য এ প্রসঙ্গে বলেন, র‌্যাব ও ওষুধ প্রশাসন সাম্প্রতিক সময়ে অভিযানের নামে ওষুধ ব্যবসায়ীদের হয়রানি করছে।ফলে হয়রানির বন্ধের দাবিতে সমিতি জরুরি বৈঠকে বসে এই ধর্মঘটের ডাক দেয়।

তিনি জানান, গত রবিবার নগরীর বহদ্দারহাটে হক মার্কেটে ওষুধের দোকানগুলোতে র‌্যাব ও ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর যৌথভাবে অভিযান চালায়। এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ৭ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। দুপুর ২টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত এই অভিযানে খবর পেয়ে রাতেই জরুরি বৈঠকে বসে ২৪ ঘন্টার ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়। যা সোমবার ভোর থেকে পালন করেছে ওষুধ ব্যবসায়ীরা।

তিনি বলেন, চট্টগ্রাম মহানগরীতে প্রায় আড়াই হাজার পাইকারী ও খুচরা ওষুধের দোকান রয়েছে। ধর্মঘটের ফলে এসব দোকান বন্ধ রাখা হয়েছে। তবে জরুরি সেবার জন্য চমেক হাসপাতালে আশপাশের ওষুধের দোকানগুলো খোলা রাখা হয়েছে।

এদিকে আকস্মিকভাবে ধর্মঘটে ওষুধের দোকান বন্ধ রাখায় ক্রেতারা ওষুধ কেনার জন্য নগরীর বিভিন্ন বাজারে দিনভর ছুটোছুটি করে। নগরীর সবচেয়ে বড় পাইকারি ওষুধের মার্কেট হাজারী লেইনে এসে ওষুধ না পেয়ে অনেক ক্রেতা ফিরে গেছে। সাধারণ খুচরা দোকানগুলোও বন্ধ থাকায় লোকজন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এলাকায় ভিড় জমায়।

মন্তব্য করুন

comments