চিকিৎসার নামে শিশু ধর্ষণ: ধর্ষকের যাবজ্জীবন

63
শেয়ার

চিকিৎসার নামে ১২ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের দায়ে ফুল মিয়া (৪৮) নামে এক প্রতারককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন চট্টগ্রামের একটি আদালত।একই সাথে আদালত তাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ৬ মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন।

রোববার (১২ নভেম্বর) চট্টগ্রামের দ্বিতীয় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোতাহির আলী এই রায় দেন।

স্থানীয়ভাবে কবিরাজ কিংবা বৈদ্য হিসেবে পরিচিত ফুল মিয়া কুমিল্লার মুরাদনগরের মৃত দুধ মিয়ার ছেলে। নগরীর বায়েজিদ থানাধীন চন্দ্রনগর এলাকায় আস্তানা গড়ে সেখানে চিকিৎসার নামে ঝাড়ফুঁক করতেন তিনি।

বাদির আইনজীবী বিবেকানন্দ চৌধুরী জানান, ২০০৮ সালের ১৭ জানুয়ারি এক শিশুকে নিয়ে তার পরিবার ফুল মিয়ার শরণাপন্ন হয়। তাবিজ-কবজের মাধ্যমে চিকিৎসার জন্য শিশুটিকে ধর্ষণ করতে হবে, এমন প্রস্তাব দেন ভণ্ড ফুল মিয়া।এক পর্যায়ে শিশুটিকে ধর্ষণ করে।

পরে ঘটনার পাঁচ দিন পর ২২ জানুয়ারি ফুল মিয়ার বিরুদ্ধে বায়েজিদ বোস্তামি থানায় মামলা দায়ের করেন শিশুটির বাবা। ৫ এপ্রিল নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১০ ধারায় আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। কিন্তু ৭ জুলাই বাদি অভিযোগপত্রের উপর নারাজি দিয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯ (১) ধারায় সংযোজনের আবেদন জানান।

আসামি ফুল মিয়া হাইকোর্ট থেকে জামিনে বের হয়ে পলাতক রয়েছেন বলে জানান তিনি।

আদালতের আদেশে ২০০৯ সালের ২২ জানুয়ারি আসামির বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯ (১) ধারায় অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দেন আদালত। রাষ্ট্রপক্ষ ৮ জনকে সাক্ষী হিসেবে আদালতে উপস্থাপন করে।

মন্তব্য করুন

comments