সাতকানিয়ায় ওসির তৎপরতায় বাল্যবিয়ে থেকে মুক্তি পেলো কিশোরী

29
শেয়ার

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় পুলিশের হস্তক্ষেপে বন্ধ করা হয়েছে ১৫ বছর বয়সী নবম শ্রেণির এক ছাত্রীর বাল্যবিয়ে। ১৯ই অক্টোবর সন্ধ্যায় বিয়ের দিন ধার্য হলেও সোমবার (১৬ই অক্টোবর) সাতকানিয়া থানার ওসি রফিকুল হোসেন অভিভাবকদের সঙ্গে কথা বলে এই বিয়ে বন্ধ করে দেন। থানায় ডেকে নিয়ে ছেলে ও মেয়ে পক্ষকে বুঝিয়ে বিয়ের সব আনুষ্ঠানিকতা বন্ধ করা হয়।

সাতকানিয়া থানা পুলিশ জানিয়েছে, আগামী ১৯ অক্টোবর সাতকানিয়া থানার ছদাহা ইউনিয়নের বাসিন্দা মোজাহের মিয়ার ১৫ বছর বয়সী মেয়ে উম্মে হেনা তানিয়ার সঙ্গে একই থানার মধ্য রামপুর গ্রামের বাসিন্দা আহমেদ হোসেনের ছেলে সৌদি প্রবাসী ইকবাল হোসেনের বিয়ের কথা চূড়ান্ত হয়। ছেলে ভালো আয়-রোজগার করে বলে ওই স্কুলছাত্রীর বাবা ইকবালের সাথে বিয়ে ঠিক করেছিলেন। এ লক্ষ্যে পৌরসভা এলাকার পরশমণি কমিউনিটি সেন্টারও ভাড়া নেন।পুলিশি তৎপরতায় বিষয়টি জানার পর ওসি রফিকুল হোসেন সোমবার দুপুরে উভয় পরিবারের অভিভাবকসহ সৌদি প্রবাসী পাত্র মো. ইকবাল হোসেনকে থানায় ডেকে আনেন। পরে তিনি তাদেরকে বাল্যবিয়ের কুফল ও এর আইনগত অপরাধের বিষয়ে বুঝিয়ে বিয়ে বন্ধ করেন।বিয়ের জন্য ঠিক করা ক্লাবের বুকিংসহ বাবুর্চি ও বিয়ের আনুষাঙ্গিক কেনাকাটা বাতিল করে আত্মীয়স্বজনদের তাৎক্ষণিকভাবে বিয়ে স্থগিতের বিষয়টি জানিয়ে দেওয়া হয়।এ সময় সাতকানিয়া পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর এনামুল কবির এবং দুইপক্ষের আত্মীয় স্বজনের উপস্থিতিতে কন্যার বাবা ও পাত্রের বাবা ওসিকে বিয়েটি স্থগিত করার বিষয়ে নিশ্চয়তা দেন।

এ সময় বিয়ে বন্ধ করার ক্ষেত্রে সহযোগিতা করার জন্য বর ইকবাল হোসেনকে ফুল দিয়ে অভ্যর্থনা জানান ওসি।

ওসি জানান, বর প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন বিয়ে না করে এবার ছুটি কাটিয়ে তিনি সৌদি আরব চলে যাবেন। কনের ২০ বছর পূর্ণ হলে তিনি দেশে এসে বিয়ের আয়োজন করবেন।

মন্তব্য করুন

comments