গৃহকর নিয়ে চসিকে আপিলের সময় ১১ নভেম্বর পর্যন্ত

29
শেয়ার
ছবিঃ সংগৃহিত

গৃহকর নিয়ে আপিলের সময় বৃদ্ধির জন্য চসিকের দুই দফা চিঠির পর অনুমোদন দিয়েছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়।

মঙ্গলবার (১০ অক্টোবর) সন্ধ্যায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামসুদ্দোহা।

তিনি বলেন, মন্ত্রণালয় থেকে আমরা মৌখিকভাবে অনুমোদন পেয়েছি। শিগগির এ সংক্রান্ত চিঠি পাঠানো হবে।

তিনি জানান, কর বিধি ১৯৮৬ এর ১৯, ২০ ও ২১ ধারার আওতায় চসিকের ৪১টি ওয়ার্ডে পঞ্চবার্ষিকী কর পুনর্মূল্যায়নের আওতায় অ্যাসেসমেন্ট বা ভূমি ও ইমারতের বার্ষিক মূল্য, হোল্ডিং ট্যাক্স, পরিচ্ছন্নতা ও আলোকায়ন রেইট নির্ধারণ করা হয়েছে। এ বিষয়ে করদাতাদের জানা ও দেখার সুবিধার্থে নিজ নিজ ওয়ার্ড কার্যালয়, সংশ্লিষ্ট কর অফিস এবং চসিকের প্রধান কার্যালয়ের রাজস্ব বিভাগে তালিকা প্রদর্শন করা হয়েছে। নির্ধারিত মূল্য বা ধার্য্যকৃত হোল্ডিং ট্যাক্স ও রেইটের বিপরীতে সম্মানিত করদাতারা নির্ধারিত সময় গত ৩ অক্টোবর পর্যন্ত কর বিধির ৭ ধারা অনুসরণ করে ৩২ হাজার ৭৯৬টি আপিল জমা দিয়েছেন। বাকি হোল্ডিংগুলের আপত্তি (যদি থাকে) দায়ের করার সুবিধার্থে চসিক সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনক্রমে আপিল/আপত্তি দাখিলের সময় আগামী ১১ নভেম্বর পর্যন্ত বাড়িয়েছে।

তিনি জানান, হোল্ডিং মালিকরা ওয়ার্ড কার্যালয়, সার্কেল অফিস ও আন্দরকিল্লায় চসিকের প্রধান কার্যালয়ের রাজস্ব বিভাগ থেকে বিনামূল্যে ‘পি’ ফরম সংগ্রহ করে ১১ নভেম্বর পর্যন্ত জমা দেওয়ার সুযোগ পাবেন।

চসিক কর্তৃপক্ষ বিধি বিধানের আওতায় প্রমাণ সাপেক্ষে নগরীর হতদরিদ্র, দরিদ্র ও অসচ্ছল জনগোষ্ঠীর হোল্ডিং ট্যাক্স ও রেইট সম্পূর্ণ মওকুফ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

মন্তব্য করুন

comments