কর্ণফুলী তলদেশের টানেল নির্মাণকাজ পরিদর্শনে ওবায়দুল কাদের

49
শেয়ার

সোমবার পতেঙ্গায় কর্ণফুলী নদীর তলদেশে টানেল নির্মাণকাজের অগ্রগতি ও নির্মাণ কাজ এলাকা পরিদর্শন করেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

এসময় সাংবাদিকদের জানান টানেল নির্মাণে চীন থেকে অর্থ ছাড় নিয়ে কোনো জটিলতা নেই।

ওবায়দুল কাদের বলেন, “বিদেশিরা তাদের প্রকল্পে যখন ঋণ দেয় তাদের অর্থছাড়ে কিছু প্রক্রিয়া থাকে। কাজেই অর্থছাড়ের বিষয়টি তাদের প্রক্রিয়াগত ব্যাপার। আমি যতটুকু জানি অর্থছাড়ের ব্যাপারে এ মুহূর্তে কোনো জটিলতা নেই।

“টানেল নির্মাণে অর্থছাড়ের সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। এতে কোনো প্রক্রিয়াগত ও পদ্ধতিগত বাধা নেই।’’

সেতুমন্ত্রী বলেন, “অর্থছাড়ের ব্যাপারে যে সমস্যা মনে করা হচ্ছে, এমন কোনো সমস্যা আমরা ফেইস করছি না।

“হলি আর্টিজানের পর থেকে আমাদের বিদেশি প্রজেক্ট কিছুটা স্লো হয়ে গিয়েছিল। সঙ্গত কারণে কনসালটেন্টরা তাদের জীবনের নিরাপত্তার কথা বলেছে। এখনও মেট্রো রেলের কাজও চলছে টানেলের কাজও চলছে।”

প্রায় সাড়ে আট হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে এ টানেল নির্মাণের কাজ চলতি বছরের মাঝামাঝি সময়ে শুরু হয়েছে। এটি নির্মাণের সময়সীমা নির্ধারণ করা হয়েছে চার বছর।

এদিকে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে টানেল নির্মাণ কাজ শেষ হবে কিনা তা জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, “শেখ হাসিনা সরকার উন্নয়নের মহাসড়কের যে পরিকল্পনা নিয়েছে- এটা ইলেকশনের জন্য নয়, এটা নেক্সট জেনারেশনের জন্য। পরবর্তী প্রজন্মের জন্য আমরা উন্নয়ন করছি।

“চায়না সরকার যখন জি টু জিতে প্রজেক্টটি অনুমোদন করে, তখন এটা আমাদের নেক্সট ইলেকশনের আগে হবে এমন কোনো কথা ছিল না।”

নির্ধারিত সময়ের চেয়ে মাস ছয়েক দেরিতে টানেল নির্মাণ কাজ শেষ হতে পারে জানিয়ে সেতুমন্ত্রী কাদের বলেন, আমরা এ টার্গেটটি কমিয়ে দিতে পারি। কিন্তু কাজটি খারাপ হবে। আমরা খারাপ কাজ, খারাপ দৃষ্টান্ত রেখে যেতে চাই না।

বর্তমান সরকারের আমলে না হলেও টানেল নির্মাণ কাজটি ভালোভাবে সম্পন্ন হবে বলে আশাবাদ মন্ত্রীর।

মন্তব্য করুন

comments