১৫০ কোটি টাকায় আন্দরকিল্লা শাহি মসজিদ সংস্কারের উদ্যোগ

223
শেয়ার

চট্টগ্রামের ঐতিহাসিক ইসলামি স্থাপনা আন্দরকিল্লা শাহী মসজিদের আধুনিকায়ন, সংরক্ষণ ও সংস্কারকাজের জন্য ১৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে।

কুয়েতের ১৫০ কোটি টাকা অর্থায়নে ঐতিহ্যবাহী আন্দরকিল্লা শাহি জামে মসজিদ সংস্কারকাজ সম্পন্ন করবে ধর্ম মন্ত্রণালয়। বুধবার (০৪ অক্টোবর) সকালে এ বিষয়ে গঠিত কমিটির সদস্যরা সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের সঙ্গে বৈঠক করেন।

মেয়রের আন্দরকিল্লা বাসভবনে অনুষ্ঠিত বৈঠকে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব মো. হাফিজুর রহমান, স্থাপত্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত প্রধান স্থপতি এসএম জুলক্বার নাইন, বাংলাদেশ প্রকৌশলী বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপত্য বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. এসএম নাজমুল ইসলাম, বাংলাদেশ স্থপতি ইনস্টিটিউটের সদস্য স্থপতি নাজমুল লতিফ, চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ শাহীনুল ইসলাম খান, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পরিচালক আবুল হায়াত মো. তারেক, গণপূর্ত অধিদপ্তরের ডিজাইনার মো. সাঈদ মাহবুব মোর্শেদ, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পরিচালক মো. আফজাল উদ্দিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে আন্দরকিল্লা শাহি জামে মসজিদের বর্তমান আকার-আকৃতি, ডিজাইন ও স্থাপত্যশৈলী অটুট রেখে আধুনিক স্থাপত্যের ভিত্তিতে আধুনিকায়ন ও সংস্কার করা হবে বলে অভিমত ব্যক্ত করা হয়।

১৯৬৮ সালের ৭ জানুয়ারি থেকে এ মসজিদের ব্যবস্থাপনা ও পরিচালনার দায়িত্বভার ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ওপর ন্যস্ত হয়। এ মসজিদে জুমা ও পাঁচওয়াক্ত নামাজ ছাড়াও পবিত্র রমজানে হাজারো মুসল্লির ইফতার, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের আয়োজনে নানামুখী ধর্মীয় অনুষ্ঠান সম্পাদিত হয়ে থাকে।

বৈঠকের সভাপতি সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদের ইতিহাস ও ঐতিহ্য তুলে ধরে বলেন, এ মসজিদটি মুসলিম সংস্কৃতির প্রাণকেন্দ্র এবং জ্ঞানপিপাসুদের একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। এখান থেকে বিচ্ছুরিত জ্ঞানের আলো সমগ্র মুসলিম বিশ্বকে আলোকিত করে। এই মসজিদের যথাযোগ্য রক্ষণাবেক্ষণের কাজ অতীব জরুরি। তিনি এ মসজিদ সংস্কার ও আধুনিকায়নে কুয়েত সরকার ফান্ড সরবরাহ করায় সাধুবাদ জানান।

উল্লেখ্য, ১৬৬৭ খ্রিস্টাব্দ আরবি ১০৭৮ হিজরিতে মোগলদের চট্টগ্রাম বিজয়ের স্মৃতি ধরে রাখতে শায়েস্তা খাঁ জলদস্যুদের আস্তানায় মসজিদ নির্মাণ করেন। এ মসজিদের নামকরণ করেন ‘আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদ’।

আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদের স্থাপত্য ও গঠন মোগল রীতি অনুযায়ী তৈরি। সমতল ভূমি থেকে প্রায় ৩০ ফুট উপরে ছোট্ট পাহাড়ের ওপর মসজিদটির অবস্থান।

প্রতিষ্ঠার পর থেকেই এ মসজিদ ঘিরে ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের ব্যাপক আনাগোনা শুরু হয়। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই আওলাদে রাসুলগণই এ মসজিদের ইমাম নিযুক্ত হতেন। যার ধারাবাহিকতা এখনও বিদ্যমান। বর্তমানে এ মসজিদের খতিবের দায়িত্ব পালন করছেন আওলাদে রাসুল আল্লামা আনোয়ার হোসানইন তাহের জাবেরি আলমাদানি।

চট্টগ্রামে মুসলিম বিজয়ের স্মারকস্বরূপ কালে সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে আছে ঐতিহাসিক ও ঐতিহ্যবাহী আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদটি।

মন্তব্য করুন

comments