মিরসরাইয়ের পাহাড়ে সুড়ঙ্গের সন্ধান

83
শেয়ার

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে দুর্গম পাহাড়ে প্রায় ১৫ ফুট দৈর্ঘ্যের একটি সুড়ঙ্গের সন্ধান মিলেছে।

মঙ্গলবার সকালে উপজেলার জোরারগঞ্জ থানাধীন করেরহাট ও হিঙ্গুলি ইউনিয়নের সীমানার কাছাকাছি দক্ষিণ অলিনগরের ডুইল্ল্যাছড়া নামক পাহাড়ি এলাকায় সুড়ঙ্গটির সন্ধান মেলে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সাংবাদিকরা জানান, সকালে ওই এলাকায় পাহাড়ে সুড়ঙ্গটির মুখের মাটি সরে গেলে এটির অস্তিত্ব টের পায় স্থানীয়রা। পরে তারা পুলিশকে খবর দেয়।

জোরারগঞ্জ থানার ওসি মো. জাহিদুল কবীর বলেন, “এটা বড় কোন ঘটনা নয়। অনেক পুরনো একটি সুড়ঙ্গ।
“দশ থেকে ১৫ ফুট লম্বা ধারণা করছি। তবে এটির ভেতরে তিন-চার ফুট পর আর যাওয়া যায় না।”

সুড়ঙ্গটির মুখ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, এটি নিয়ে উদ্বেগের কিছু নেই।

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে, কদিন আগেও অলিনগর বনবিটের আওতায় থাকা ডুল্লাছড়ির পাহাড়গুলো জঙ্গলে আবৃত ছিল। সম্প্রতি সরকারের বনবিভাগ নতুন বনায়নের জন্যে পরিষ্কারের কাজ শুরু করলে এখানকার পাহাড়গুলো ন্যাড়া হয়ে পড়ে।

গত ১৫ সেপ্টেম্বর জঙ্গল পরিষ্কারের কাজ করতে গিয়ে বিশেষ কায়দায় খোঁড়া সুড়ঙ্গটি দেখতে পান স্থানীয় দক্ষিণ অলিনগর গ্রামের বাসিন্দা মঞ্জুর আলম।

গত ২৫ সেপ্টেম্বর বিকালে মঞ্জুর তার বন্ধুদের নিয়ে পুনরায় দেখতে যান ওই সুড়ঙ্গ। পরবর্তীতে ফেইসবুকে সুড়ঙ্গের ছবি দিলে উপজেলার বিভিন্ন স্থান থেকে সাংবাদিকসহ স্থানীয় লোকজন সুড়ঙ্গটি দেখতে ভিড় জমান।

সুড়ঙ্গের ভেতর ঘুরে আসা নেছার আহমদ বলেন, সুড়ঙ্গের ভেতর আরো দুটি সুড়ঙ্গ দেখা গেছে। আমি সুড়ঙ্গে প্রবেশের সময় প্রায় ৮০ হাতের একটি পাহাড়ি লতা নিয়ে যায়। ৭০ হাত পর্যন্ত যাওয়ার পর আর ভেতরে যেতে পারিনি। ওখানে সুড়ঙ্গের মুখে মাটি দিয়ে ভরাট করে দেওয়া হয়েছে। মাটিগুলো সরানো গেলে আরো ভেতরে যাওয়া সম্ভব হবে।

সুড়ঙ্গের মুখ দিয়ে ১০-১৫ হাত ভেতরে যাওয়ার পর দুপাশে আরো দুটি সুড়ঙ্গ দেখা গেছে। সুড়ঙ্গের ভেতর ১০-১২ হাত পরপর ৪-৫ জন বসে কথা বলার মতো প্রশস্ত জায়গা আছে। সুড়ঙ্গের ভেতরে দুপাশে এমনভাবে মাটি কাটা হয়েছে মনে হয় ধারালো খন্তা (মাটির কাটার যন্ত্র) ব্যবহার করা হয়েছে। এছাড়া মাটিতে বালি ও কয়লা দেখা গেছে।

মন্তব্য করুন

comments