X

১০ বছর মেয়াদি মাস্টারপ্ল্যান করছে সিডিএ এবং বিশ্ব ব্যাংক

নগরীর ট্রাফিক ব্যবস্থার উন্নয়নে ১০ বছর মেয়াদি মাস্টারপ্ল্যান করছে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ) ও বিশ্ব ব্যাংক।
রোববার (২৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রেডিসন ব্লু চিটাগাং বে ভিউর মেজবান হলে ‘চিটাগাং স্ট্র্যাটেজিক আরবান মাস্টারপ্ল্যান’ শীর্ষক ওয়ার্কশপে এ তথ্য জানানো হয়।

গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মো. মোশাররফ হোসেন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ওয়ার্কশপের উদ্বোধন করেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে রয়েছেন সিডিএ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম।

গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেন, সিডিএ, সিটি করপোরেশন, গণপূর্ত মন্ত্রণালয় আমরা সবাই মিলে যদি চেষ্টা করি, তাহলে চট্টগ্রামকে একটি সুন্দর বাসযোগ্য নগরী হিসেবে গড়ে তোলা যাবে। আজকে বর্জ্যরে জন্য চট্টগ্রামে হাঁটা যায় না, নোংরা। রাস্তায় রাস্তায় ময়লা সব পড়ে আছে। আর বিদেশে এ ময়লাগুলো সম্পদ। শুধু সিটি করপোরেশনের গাড়ির জন্য বসে থাকলে হবে না। ঢাকার ন্যায় চট্টগ্রামে সিডিএ’র মাধ্যমে আমরা যে অনন্যা আবাসিক এলাকা করছি। সেখানে স্যুয়ারেজ সিস্টেম প্লান্ট এবং সলিড ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্ট করা হবে। ময়লা নিতে সিটি করপোরেশনের গাড়ি কখন আসবে, সেটির জন্য বসে থাকলে তো হবে না। যেহেতু চট্টগ্রামে কোনো সলিড ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্ট নেই।

তিনি আরো বলেন, চট্টগ্রামকে ট্রাফিক ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের আওতায় আনতে পারলে ভালো হবে এবং দুর্ঘটনাও কমবে। যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং করতে দেওয়া যাবে না। নির্দিষ্ট এলাকায় গাড়ি পার্কিং করতে হবে। আইনে চালকদের শাস্তি আরও বাড়াতে হবে। সমস্যা চিহ্নিত করে সমস্যা সমাধানে সবাইকে আন্তরিক হওয়ারও পরামর্শ দেন গণপূর্তমন্ত্রী।

ওয়ার্কশপে চট্টগ্রামে সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, সিডিএর নগর পরিকল্পনাবিদ ও প্রজেক্ট কোঅর্ডিনেটর মো. শাহীনুল ইসলাম খান, বিশ্ববাংকের পক্ষে প্রজেক্টের টিম লিডার সিজিওকি সাকাকি, কলিন ব্রাডার, ডেভিড ইংহাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

 

মন্তব্য করুন

comments