আনোয়ারায় হচ্ছে দেশের প্রথম ড্রাইডক ইকোনমিক জোন

87
শেয়ার

চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার বাদলপুর মৌজায় কর্ণফুলী নদীর পাড়ে ‘কর্ণফুলী ড্রাইডক স্পেশাল ইকোনমিক জোন’ প্রতিষ্ঠার জন্য প্রি-কোয়ালিফিকেশন লাইসেন্স বা প্রাক-যোগ্যতাপত্র দেওয়া হয়েছে। কর্ণফুলী ড্রাইডক লিমিটেড ৬৬ একর জমিতে ২টি জেটি ও ১টি ডক বেসিনসহ ড্রাইডক নির্মাণ করবে।

গতকাল রাজধানীর কারওয়ান বাজারস্থ বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) কার্যালয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে এই প্রাক-যোগ্যতা পত্র কর্ণফুলী ড্রাইডক স্পেশাল ইকোনমিক জোনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ রশিদের হাতে তুলে দেন বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী।

এসময় জানানো হয়, দুইটি জেটি ও একটি ডক বেসিনসহ ড্রাইডক নির্মাণ করা হবে। এজন্য ক্রয়কৃত, সরকার হতে ৯৯ বছরের ইজারাকৃত এবং চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ হতে পুন:নবায়নযোগ্য ইজারা প্রাপ্ত মোট ৬৫ একর জমিতে এই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে। ১২শ কোটি টাকার প্রকল্পটিতে ইতোমধ্যে বিশ্বব্যাংকের আইএফফি প্রায় ৮শ কোটি টাকা ঋণ দিয়েছে।

অনুষ্ঠানে পবন চৌধুরী বলেন, বেসরকারি খাতে এটিই হবে দেশের প্রথম ড্রাই ডক স্পেশাল ইকোনমিক জোন। যা বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। বাংলাদেশে শ্রম তুলনামূলক সস্তা হওয়ায় দেশে জাহাজ নির্মাণ শিল্পের বড় সম্ভাবনা রয়েছে, তবে এ খাতে দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে শিল্প মালিকদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

ইতোমধ্যে বেজা থেকে দেশের ১৬টি স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠিত প্রতিষ্ঠানকে প্রাইভেট অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা করার প্রি-কোয়ালিফিকেশন লাইসেন্স প্রদান করা হয়েছে। এরমধ্যে ৪টি জোনকে লাইসেন্স প্রদান করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে এম এ রশিদ জানান, এ প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে প্রতিবছর ১২ কোটি ডলারের বৈদেশিক মুদ্রা অর্জিত হবে। এ প্রকল্পে প্রায় ৩ হাজার দক্ষ ও অদক্ষ লোকের সরাসরি কর্মসংস্থান হবে। ইতোমধ্যে এ প্রকল্পে প্রয়োজনীয় রাস্তা, বিদ্যুত্ সংযোগসহ অবকাঠামো স্থাপন করা হয়েছে এবং ড্রাইডক এর জেটি নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। সর্বোপরি কর্ণফুলী ড্রাইডক স্পেশাল ইকোনমিক জোন প্রতিষ্ঠা হলে ড্রেজার ও জলযান নির্মাণ ও মেরামত কার্যক্রমে যুগান্তকারী বিপ্লব সূচিত হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বেজার নির্বাহী সদস্য ড. এম এমদাদুল হক, মো. হারুনুর রশিদ, মোহাম্মদ আইয়ুবসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য করুন

comments