গুম হওয়া ভ্যানচালকের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় দুজন গ্রেফতার

32
শেয়ার

গত রোববার রাতে অভিযান চালিয়ে গুম হওয়া ভ্যানচালকের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় জড়িত থাকার দায়ে আমজাদ হোসেনকে (২৩) এবং রশি কুমার ত্রিপুরাকে (৩৮) কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। নিহত অর্জুন নাথ উপজেলার বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের রহমতপাড়া গ্রামের মৃত ননী গোপাল নাথের ছেলে।

ভ্যানচালকের স্ত্রী মনি নাথ বলেন, জিডি করার পর পুলিশ আমার স্বামীকে উদ্ধারে জোরালো অভিযান চালালে তাকে জীবিত উদ্ধার করা সম্ভব হতো। তিনি আরো বলেন, তাদের সংসারে পাঁচ বছরের একটি সন্তান রয়েছে। অর্জুন ছিল পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি।

এর আগে শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১১টার দিকে কুমিরা ঘাটঘর এলাকায় সাগরে ভাসমান অবস্থায় পাঁচদিন আগে গুম হওয়া ভ্যানচালক অর্জুন চন্দ্র নাথের লাশ উদ্ধার করেছিলো পুলিশ।রাতে স্থানীয়রা সাগরে একটি লাশ ভাসতে দেখে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে।

প্রসঙ্গত, গত ২৮ আগস্ট সোমবার সকালে অর্জুন ভ্যান গাড়ি নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফিরে আসেনি। এ ব্যাপারে তার স্ত্রী বাদী হয়ে পরদিন ২৯ আগস্ট সীতাকুণ্ড মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।তিনি তার স্বামীকে ঝগড়ার রেশ ধরে গুম করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন।

তার স্ত্রী মনি নাথ জানান, গত সোমবার সকালে তার স্বামী প্রতিদিনের ন্যায় ভ্যানগাড়ি নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়। কিন্তু বিকেল পর্যন্ত বাসায় না ফেরায় মোবাইলে কল দিলে বন্ধ পাওয়া যায়। এরপর থেকে তাকে খোঁজা শুরু করলে স্থানীয় কয়েকজন জানায়, সকালে অর্জুনের সঙ্গে কয়েকজন যুবকের তর্ক-বির্তক হয়। পরে তাকে ধরে পাহাড়ের দিকে নিয়ে যায় তারা। কয়েকজন যুবকের সঙ্গে তর্ক-বির্তকের কারণে তার স্বামীকে পাহাড়ে গুম করা হয়েছে বলে তখন থানায় অভিযোগ করেন তিনি।

মন্তব্য করুন

comments