নোয়খালী থেকে অপহৃত স্কুলছাত্রী হাটহাজারী থেকে উদ্ধার

59
শেয়ার

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী থেকে অপহৃত এক স্কুল ছাত্রীকে চট্রগ্রামের হাটহাজারী থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।বৃহস্পতিবার তাকে উদ্ধারের সময় আটক করা হয় অপহরণকারী দম্পতি শাহনাজ আক্তার পারভীন (১৯) এবং নূর ইসলাম হৃদয় (২৩) কে।

জানা গেছে , অপহৃত নাদিয়া আরফিন দোলনকে (৮) শনিবার স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে নিখোঁজ হয় । সে সোনাইমুড়ী থানার ওমান প্রবাসী মো. দুলাল হোসেনের মেয়ে এবং পতিশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২য় শ্রেণির ছাত্রী।

পাখি পতিশ এলাকার আজিজ পাটোয়ারি বাড়ির মো. শফিউল্লাহর মেয়ে ও সম্পর্কে দোলনের ফুফাত বোন। হৃদয় লক্ষ্মীপুরের রামগতি থানার চরটিকার আকাব্বর সওদাগর বাড়ির আনিসুর রহমানের ছেলে।

দোলনের চাচা মো. আলাউদ্দিন জানান, শনিবার দুপুরে স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে নিখোঁজ হয় দোলন। ওইদিন বিকেলে পাখি এবং হৃদয় মোবাইল ফোনে জানায় দোলনকে জীবিত ফেরত পেতে হলে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ দিতে হবে।

এর পর থানায় জিডি করেন তারা।এরপরও তাকে উদ্ধার করা না গেলে তিনি বুধবার র‌্যাব-৭ চট্টগ্রামে একটি লিখিত অভিযোগ করেন।

র‌্যাব-৭ কল ট্র্যাকিংয়ের মাধ্যমে হাটহাজারীতে পাখি এবং হৃদয়ের অবস্থান নিশ্চিত হয়ে হাটহাজারীর উপজেলার লোহারপুল এলাকায় একটি বিকাশের দোকান থেকে তাদের আটক করে।

জিজ্ঞাসাবাদে পাখি ও হৃদয় বলে, ‍‍‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌”আমরা খেলনা কিনে দেওয়ার নাম করে দোলনকে অপহরণ করে প্রথমে কুমিল্লায় নিয়ে যাই। আটক হওয়ার ভয়ে সেখান থেকে ট্রেনে চট্টগ্রামে আসি। পরে দোলনকে নিয়ে হাটহাজারীতে এক আত্মীয়ের বাসায় যাই।”

ওসি মো. বেলাল উদ্দিন বলেন, “র‌্যাব-৭ এর সহযোগিতায় পাখি এবং হৃদয়কে আটক করা হয়েছে। দোলনকে উদ্ধার করা হয়েছে। তাদেরকে সোমাইমুরী থানায় হস্তান্তর করা হবে।”

মন্তব্য করুন

comments