X

হত্যায় জড়িত তিন কিশোর ছিনতাইকারী গ্রেফতার

চট্টগ্রাম নগরীতে ছিনতাইয়ে বাধা দিতে গিয়ে আহত এক যুবকের মৃত্যুর ঘটনায় তিন কিশোর ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে ডবলমুরিং থানার অফিসার ইনচার্জ একেএম মহিউদ্দিন সেলিমের নেতৃত্বে পাহাড়তলী রেল স্টেশন ও তার আশ-পাশ এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে তাদেরকে গ্রেফতার করেছে ডবলমুরিং থানা পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- মোঃ টিপু সুলতান (১৬), পিতা- মোঃ সেলিম, মাতা- পারভিন, সাং- লালপোল, কামার পুকুর, থানা- বাগেরহাট সদর, জেলা- বাগেরহাট, বর্তমানে- পাহাড়তলী, সিটি ব্যাংকের পিছনে, এনামের ভাড়াটিয়া, থানা- ডবলমুরিং, জেলা- চট্টগ্রাম।

মোঃ বাদশা মিয়া (১৫), পিতা- মোঃ জিল্লু মিয়া, মাতা- মনোয়ারা বেগম, সাং- কুলগুন্ডা, ভূইয়া বাড়ী, থানা- নাসিরনগর, জেলা- ব্রাহ্মণবাড়ীয়া, বর্তমানে- সরাইপাড়া, ভোলা ড্রাইভারের ভাড়াটিয়া, থানা- পাহাড়তলী, জেলা- চট্টগ্রাম।

মোঃ পিয়াস প্রঃ প্রিয় (১২), পিতা- মোঃ বাবুল, মাতা- নাসরিন, সাং- কালিয়াপাড়া, মিঝি বাড়ী, থানা- সদর, জেলা- চাঁদপুর, বর্তমানে- সরাইপাড়া, মঞ্জুর ভাড়াটিয়া, থানা- পাহাড়তলী, জেলা-চট্টগ্রাম।

গ্রেফতারকৃত কিশোর আসামীরা গত রবিবার (২৭ই আগস্ট) সন্ধ্যার পরে ডবলমুরিং মডেল থানাধীন পাহাড়তলী রেল স্টেশনের পাশে রেল লাইনের উপর দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় দুইজনকে পথরোধ করে ছুরিকাঘাত করে।এরপর তার পকেটে থাকা ৬০০ টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনতাই করে।।এতে গুরুতর আঘাত প্রাপ্ত হয়ে চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় গত বুধবার(৩০ই আগস্ট) ভোর রাতে আরিফ হোসেন(২২) নামে একজন মৃত্যুবরন করেন। পরবর্তীতে অপর ভিকটিম মোঃ শহীদুল ইসলাম শামীম চট্টগ্রাম রেলওয়ে থানায় মামলা করে।

ডবলমুরিং থানার ওসি একেএম মহিউদ্দিন সেলিম বলেন, বুধবার রাতে পাহাড়তলী রেল লাইন এলাকায় ব্লক রেইড করে প্রায় ৩২ জনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এদের মধ্যে তিনজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িতদের নাম পাওয়া যায়। সকাল পর্যন্ত টানা অভিযানে খুনের ঘটনায় জড়িত তিনজনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হই আমরা।

তিনি বলেন, খুনের ঘটনায় অংশ নেওয়া আরও একজন পলাতক আছে। এরা সবাই কিশোর অপরাধী। রেল লাইনের পাশে গড়ে উঠা বিভিন্ন বস্তিতে তারা বাস করে। গ্রেফতার তিনজনকে রেলওয়ে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা দীর্ঘদিন ধরে চট্টগ্রাম মহানগর রেল স্টেশন এলাকায় ছিনতাই, দস্যুতা করে আসছিল বলে স্বীকার করে।তাদের বিরুদ্ধে ডবলমুরিং থানায় নিয়মিত মামলা রুজু করা হয়েছে।

 

মন্তব্য করুন

comments