X

দুর্নীতির মামলায় চট্টগ্রাম বন্দরের ৩ কর্মকর্তা কারাগারে

অর্থ আত্মসাৎ মামলায় গ্রেফতার চট্টগ্রাম বন্দরের তিন কর্মকর্তাকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত। বুধবার বিকেলে চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম নাজমুল হোসেন চৌধুরীর আদালত এ নির্দেশ দেন।

চট্টগ্রাম বন্দরের ভেতর থেকে ১৪ কন্টেইনার ভর্তি ক্রুড (অপরিশোধিত) গ্লিসারিন অবৈধভাবে পাচার ও নিলামের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ।

বুধবার সকালে চট্টগ্রাম বন্দরের নিলাম শাখার কার্যালয় থেকে এই তিন কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তার করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

দুদকের উপ পরিচালক মো. লুৎফুল কবির চন্দন জানান, ১৪ কন্টেইনার ভর্তি ক্রুড গ্লিসারিন অবৈধভাবে পাচার ও নিলামের অর্থ আত্মসাতের ঘটনায় করা মামলার ১১ আসামির মধ্যে বন্দরের তিন কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তার করা হলো। এই তিন কর্মকর্তা হলেন-চট্টগ্রাম বন্দরের সহকারী পরিবহন পরিদর্শক মো. মনোয়ার হোসেন, উচ্চমান বহিঃ সহকারী মো. নুরুল ইসলাম ও উচ্চ মান বহিঃ সহকারী পুলক কান্তি দাশ।

২০১৫ সালের ২০ সেপ্টেম্বর থেকে ৯ দিনের ব্যবধানে প্রতারণার মাধ্যমে মিথ্যা তথ্য দিয়ে ১৪ কন্টেইনার ভর্তি চার লাখ চার হাজার ৭৫৮ মেট্রিক টন গ্লিসারিন ও নিলামের অর্থ ৭০ লাখ ৪৮ হাজার টাকা আত্মসাৎ করা হয়।

দুদকের সহকারী পরিচালক এইচ এম কামরুজ্জামান জানান, এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে কাস্টমসের সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা আবদুস সিদ্দিক, মো. মোহসিন আলী, বন্দরের টার্মিনাল কর্মকর্তা শাহাদাৎ হোসেন মজুমদার, সহকারী পরিবহন পরিদর্শক এম এম সুলতানুল আলমসহ মোট ১১ জনের বিরুদ্ধে হালিশহর থানায় মামলা করা হয়েছে।

গ্রেপ্তার তিন আসামিকে গতকাল বিকেলে চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম মো. নাজমুল হোসেন চৌধুরীর আদালতে হাজির করা হয়। আদালত তাঁদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।বিষয়টি নিশ্চিত করে দুদকের পিপি কাজী ছানোয়ার হোসেন লাবলু জানান, অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে হালিশহর থানায় দায়ের হওয়া মামলায় তিনজনকে গ্রেফতারের পর আদালতের মাধ্যমে তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

মন্তব্য করুন

comments