কান ধরে উঠবস করার শাস্তিতে অসুস্থ হয়ে ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রের মৃত্যু

173
শেয়ার

ষষ্ঠ শ্রেণীর এক ছাত্রকে কান ধরে উঠ বস শাস্তি দেওয়ায় অসুস্থ হয়ে মারা যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। নিহত ছাত্রের নাম মোঃ ফারুক (১২)। সে উপজেলার কুসুমপুরা ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের কাজীর দিঘির বাড়ির আবুল হোসেনের পুত্র।রবিবার দুপুরে এই ঘটনার খবর পেয়ে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ উদ্ধার করতে গেলে পুলিশকে ঘেরাও করে রাখে স্থানীয় জনতা।

গতকাল রোববার বিকেল ৪টায় পটিয়া উপজেলার মনসা স্কুল এন্ড কলেজে এই ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, মনসা স্কুল এন্ড কলেজের ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র ফারুক প্রতিদিনের মত গতকাল রোববার সকালে স্কুলে যায়।দুপুর দেড়টার দিকে শারিরীক শিক্ষা বিষয়ের শিক্ষক তাহেরা আক্তার ক্লাসে ওই ছাত্রকে কান ধরে ৫০বার উঠবস করার শাস্তি দেন। সে বেশ কয়েকবার উঠ বস করতে গিয়ে এক পর্যায়ে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ছুটি দেয়া হয়। পরে বাড়ি ফেরার পথে সে অজ্ঞান হয়ে লুটিয়ে পড়ে মাটিতে।এসময় তাকে পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে বিকেল ৫টায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

মনসা স্কুল এন্ড কলেজের প্রধান শিক্ষক নুরুল আলম ফারুকী ঘটনা স্বীকার করে বলেন, ক্লাসে পড়া না পারায় ষষ্ঠ শ্রেণীর সকল ছাত্রদের কান ধরে উঠ বস করান। স্কুল ছুটি শেষে ছাত্ররা বাড়ি ফেরার সময় বিকেলে স্কুলের মাঠে ছাত্র ফারুক মাথা ঘুরে পড়ে যায়। তবে সে প্রতিবন্ধী ছিল বলে প্রধান শিক্ষক দাবি করেন।

এ ব্যাপারে পটিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ মোঃ নেয়ামত উল্লাহ বলেন, ক্লাস চলাকালীন ছাত্রকে কান ধরে উঠ বস করার ঘটনায় অসুস্থ হয়ে ছাত্রের মৃত্যুর খবর পেয়ে তিনিসহ একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়।

তিনি বলেন, থানা থেকে অতিরিক্ত টিম নিয়ে গিয়েছিলাম। দুজন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এসেছিলেন। আমরা ময়নাতদন্তের মাধ্যমে আইনগত ব্যবস্থা নিতে চেয়েছিলাম।কিন্তু স্কুলছাত্র হৃদরোগে আক্রান্ত ছিলেন দাবি করে তার মরদেহ নিয়ে যেতে জনতা বাধা দেয়। পরিবারও মামলা করবে না বলার পর আমরা ফিরে আসি।

মন্তব্য করুন

comments