সীতাকুন্ডে জেলেদের মুখে হাসি; জাঁকে জাঁকে ধরা পড়ছে ইলিশ

129
শেয়ার
ফাইল ছবি

চট্টগ্রামের সীতাকুন্ডে ইলিশের মৌসুমে জেলেদের সুদিন চলছে! গত পূর্ণিমার জো থেকে প্রচুর ইলিশ ধরা পড়তে শুরু করেছে। সাগরে গিয়ে কোনো জেলে খালি হাতে ফিরছে না।

সীতাকুণ্ডের প্রতিটি ঘাটে ইলিশভর্তি নৌকা নিয়ে ফিরছে জেলেরা। ছোট-বড় সব ধরনের ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে। বাজারে দামও মোটামুটি ভালো। একবার সাগরে গেলে ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকার ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে।

এ ইলিশ বিক্রি করে জেলেরা সারা বছরের জন্য সঞ্চয় করে রাখে। কিন্তু এ বছর মৌসুমের প্রথম মাস জুলাইয়ে বঙ্গোপসাগরের সীতাকুণ্ড-সন্দ্বীপ চ্যানেলে তেমন কোনো ইলিশ ধরা পড়েনি।

কিন্তু গত চার-পাঁচ দিন প্রচুর ইলিশ ধরা পড়তে শুরু করেছে। ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ আসছে জালে। সাইজ অনুযায়ী বিভিন্ন দামে ইলিশ বিক্রি হচ্ছে। একদম ছোট সাইজের ইলিশ ১০০-১৫০ টাকা কেজি, তার চেয়ে বড়গুলো ২০০ থেকে ২৫০ টাকা। মাঝারি ইলিশ ৪০০-৫০০ এবং বড়গুলো পরিবেশ-পরিস্থিতি বুঝে কেজি ৭০০-৮০০ থেকে এক হাজার ২০০ থেকে এক হাজার ৩০০ টাকা কিংবা আরো বেশি বিক্রি হচ্ছে। একইভাবে উপজেলার সৈয়দপুর থেকে সলিমপুর পর্যন্ত সর্বত্রই প্রচুর রুপালি ইলিশ ধরা পড়ছে।

কুমিরা-সন্দ্বীপ ঘাটঘরে প্রচুর মানুষ ইলিশ কিনতে জেলে নৌকাগুলোর কাছে ছোটাছুটি করছে। চট্টগ্রামের খুলশির এক ক্রেতা বলেন, শুনেছি এখানে ঘাটে সস্তায় টাটকা ইলিশ পাওয়া যায়। তাই ইলিশ কিনতে গাড়ি নিয়ে চলে এসেছি। এখান থেকে দুই ঝাঁকা ইলিশ (আনুমানিক ২০ কেজি) পাইকারিতে কিনলাম সাড়ে তিন হাজার টাকায়। এর মধ্যে সাত থেকে আট কেজির মতো ছোট ইলিশ। অন্যগুলো বড়, মাঝারি আকৃতির।

উপজেলা মত্স্য কর্মকর্তা মো. সেলিম রেজা বলেন, এবার প্রথম দিকে ইলিশ না পড়লেও গত কয়েক দিনে পূর্ণিমার জো থেকে ইলিশ পড়তে শুরু করেছে। জেলেরা প্রচুর ইলিশ পাচ্ছে। তবে বেশির ভাগই সাইজে কিছুটা ছোট। এখন থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ইলিশ আরো বাড়বে বলে ধারণা করছেন তিনি।

মন্তব্য করুন

comments