মাদকের বিকল্প হিসেবে বিয়ার উন্মুক্ত করার প্রস্তাব

126
শেয়ার

চট্টগ্রামে মাদকের বিস্তার রোধে বিকল্প হিসেবে বিয়ার উন্মুক্ত করার প্রস্তাব দিয়েছেন নগর পুলিশের কমিশনার মো. ইকবাল বাহার।

রবিবার বিকেলে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউস মিলনায়তনে, কক্সবাজার জেলার রোহিঙ্গা শরণার্থীদের বর্তমান অবস্থার প্রেক্ষাপটে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি এবং রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবান পার্বত্য জেলাসহ চট্টগ্রাম জেলার সার্বিক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির আলোকে বিভাগীয় পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

ইকবাল বাহার বলেন, ‘যতোক্ষণ চাহিদা থাকবে ততোক্ষণ মাদক পৌঁছাবেই। দেশে অন্তত এক কোটি মাদকসেবী রয়েছে। আমাদের দেশে ইতিমধ্যে বিয়ার উৎপাদন হচ্ছে, এটা যদি উন্মুক্ত করে দেওয়া হয় তাহলে অন্তত কয়েক লাখ মাদকসেবী মাদক ছেড়ে বিয়ারের দিকে ঝুঁকবে।’

বিভাগীয় পর্যালোচনা সভায় উপস্থিতদের উদ্দেশে তিনি বলেন,  ‘মাদকের উৎস বন্ধ করতে হলে এর গ্রাহকদের বিকল্প দিতে হবে। তা না হলে দেশকে মাদকমুক্ত করা সম্ভব হবে না।’

পুলিশ কমিশনার মাদক নির্মূল সহজে সম্ভব নয় মন্তব্য করে বলেন, একটি ইয়াবা ট্যাবলেট মায়ানমার থেকে কিনতে হয় ২০টাকায়। সেটি আমাদের দেশে ৫০০টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এটি এখন অনেক বড় ব্যবসা। এর সঙ্গে অনেকেই জড়িত।এর পেছনে অনেক হাত রয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘মাদকদ্রব্যের পাচার বন্ধ করে মাদকাসক্তি কমানো যাবে না। মাদকসেবীদের ফিরিয়ে আনতে তাদের বিকল্পের ব্যবস্থা করতে হবে।’

রোহিঙ্গা প্রসঙ্গে তিনি বলেন,রোহিঙ্গারা চট্টগ্রাম, কক্সাবাজার ও পার্বত্য তিন জেলার পাশাপাশি চট্টগ্রাম নগরীতেও চলে এসেছে। তাদের যাতে নিরাপত্তা বলয়ের মধ্যে নিয়ে আসা যায় সেজন্য ডিজিটাল প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তাদের অন্তর্ভূক্ত করতে হবে। যাতে কোনো অপরাধ করলেই তাদের দ্রুত চিহ্নিত করা যায়। পাশাপাশি পুলিশ ভেরিফিকেশন ছাড়া যাতে কোনো ধরণের পাসপোর্ট দেওয়া না হয়।’

বিভাগীয় কমিশনার রুহুল আমীনের সভাপতিত্বে সভায় সভাপতিত্ব করেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব কামাল উদ্দিন আহমেদ। সভায় পাঁচ জেলার জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা বক্তব্য দেন।

 

মন্তব্য করুন

comments