বাঁশখালীতে বন্য হাতির তান্ডব; ১ জনের মৃত্যু ও ৪ টি ঘর বিধ্বস্ত

38
শেয়ার

বাঁশখালীতে বন্য হাতির উৎপাত আবার বৃদ্ধি পেয়েছে। বেপরোয়া হয়ে উঠেছে বন্য হাতির পাল।

লোকালয়ে ক্ষুধার্ত হাতির আক্রমণে আতঙ্কিত স্থানীয় মানুষ। গত বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টার দিকে বাঁশখালীর জঙ্গল নাপোড়া পাহাড়ি এলাকায় লাকড়ি কুড়াতে গিয়ে হাতির আক্রমণে একজনের মৃত্যু হয়েছে।

মৃত ব্যক্তির নাম শীতলা দেব(৫০)। সে ঐ গ্রামেরই হরিপদ দে এর পুত্র। স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, সে প্রতিদিনের মত বৃহস্পতিবার পাহাড়ে লাকড়ি আনতে যায়। হঠাৎ বন্য হাতির আক্রমণে আহত অবস্থায় পড়ে থাকে।

পরে এক ব্যক্তি দেখতে পেয়ে বাড়িতে খবর দিলে বাড়ির লোকজন আহত অবস্থায় বাঁশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করানো হয়। পরে সে শুক্রবার বিকালে হাসপাতালে মারা যান।

এদিকে, বাঁশখালী উপজেলার পুকুরিয়া ইউনিয়নের পূর্ব নাটমুড়া ও নতুনপাড়ায় গত বৃহস্পতিবার রাতে বন্য হাতির পাল আক্রমণ করে চারটি মাটির তৈরি বিশাল বসতবাড়ি ভেঙে দিয়েছে। বসতবাড়ির গোলায় থাকা অন্তত ৮০ আড়ি ধান খেয়ে ফেলেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, গভীর রাতে গ্রামে বন্য হাতির পাল নামার খবর ছড়িয়ে পড়লে আতঙ্কে মানুষজন চিত্কার শুরু করে। হাতি তাড়ানোর জন্য গ্রামবাসী দলবদ্ধ হয়। বন্য হাতির পাল লোকালয়ে ঢুকে নতুন পাড়ার মো. জসিম ও তাওহিদ এবং পূর্ব নাটমুড়ার নুরুল হক ও নুর মোহাম্মদের চারটি বসতবাড়ি এবং গাছ ভেঙে দেয়। অন্যদিকে ধানের গোলা ভেঙে ঘরে থাকা ধান খেয়ে ফেলে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মোহাম্মদ চাহেল তস্তরী বলেন, বন্য হাতির আক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে গ্রামবাসীকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছি। ক্ষতির শিকার সবাইকে সরকারিভাবে আর্থিক সহযোগিতা করা হবে।

প্রসঙ্গত, গত তিন বছরে বুনো হাতির আক্রমণে উপজেলায় অর্ধশতাধিক ব্যক্তির প্রাণহানি ঘটেছে। আহত হয়েছে আরও তিন শতাধিক মানুষ। এছাড়াও, বন্য হাতির দল নষ্ট করছে পাহাড়ি এলাকার লাখ লাখ টাকার ফসল।

মন্তব্য করুন

comments