চট্টগ্রাম মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের বিশেষ অভিযানে সংঘবদ্ধ চোর চক্রের ৩ সদস্য গ্রেফতার

52
শেয়ার

বন্দর নগরী চট্টগ্রামের কোতোয়ালী থানাধীন স্টেশন রোড়ের হোটেল প্যারামাউন্ট ইন্টারন্যাশনালে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে চোরাই মালামাল উদ্ধার সহ সংঘবদ্ধ চোর চক্রের ৩ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত আসামীরা হলেন;

১)সেলিনা আক্তার কেয়া(২৭), স্বামী-শফিকুল ইসলাম প্রকাশ স্বপন বেপারী, সাং-চর ঠেঙ্গামারা, বেপারীবাড়ী, থানা-কালকিনি, জেলা-মাদারীপুর, বর্তমানে-১১৮ মধ্য বাসাবো, ১২নং গলি, ওহাব কলোনী, পাগলা মামার গলি, থানা-সবুজবাগ, ঢাকা।

২) নুপুর আক্তার (১৯), স্বামী-মাঈন উদ্দিন;মোহন, সাং-সোহাগ ধর, থানা-নেছারাবাদ(স্বরুপকাঠি), জেলা-পিরোজপুর।

৩) মোঃ শফিকুল ইসলাম প্রকাশ স্বপন বেপারী(৩২), পিতা-হাজী আব্দুর রশিদ বেপারী, সাং-চর ঠেঙ্গামারা, বেপারীবাড়ী, থানা-কালকিনি, জেলা-মাদারীপুর, বর্তমানে-১১৮ মধ্য বাসাবো, ১২নং গলি, ওহাব কলোনী, পাগলা মামার গলি, থানা-সবুজবাগ, ঢাকা।

৩০শে জুলাই (রবিবার) ২০১৭ইং বিকাল ৫ টা ৪৫ মিনিটের এর সময় চট্টগ্রাম মহানগর গোয়েন্দা (উত্তর) বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার জনাব হাসান মোঃ শওকত আলী এর দিক নির্দেশনায় অতিঃ উপ-পুলিশ কমিশনার(দক্ষিণ) জনাব মির্জা সায়েম মাহমুদ এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে পুলিশ পরিদর্শক জনাব হাবিবুর রহমান ও পুলিশ পরিদর্শক জনাব মোঃ ইলিয়াছ খানের নের্তৃত্বে এসআই সনজয় কুমার সিনহা, এসআই আজহারুল ইসলাম সঙ্গীয় অফিসার ফোর্স সহ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সিএমপি’র কোতোয়ালী থানাধীন স্টেশন রোডস্থ হোটেল প্যারামাউন্ট ইন্টারন্যাশনালে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে চোরাই মালামাল বিক্রয় করাকালীন সময়ে আসামী ১)সেলিনা আক্তার কেয়া, ২) নুপুর আক্তার ও ৩) মোঃ শফিকুল ইসলাম প্রকাশ স্বপন বেপারীকে গ্রেফতার করে। তাদের কাছ থেকে একটি এইচপি ল্যাপটপ, একটি এসার ল্যাপটপ, একটি ডিএসএলআর ক্যামেরা, গ্রামীন ফোনের পুরাতন একটি মডেম বক্স,লকেটযুক্ত একটি স্বর্ণের চেইন, নগদ ৫,০০০/-(পাঁচ হাজার) টাকা, একটি বক্সে কিছু ইমিটেশন জুয়েলারী সামগ্রী, একশো ডলার মূল্যমানের চারটি ইউ এস ডলার, একটি কালো রংয়ের ট্রাভেল হ্যান্ডব্যাগ উদ্ধার করেন, যার সর্বমোট মূল্য আনুমানিক ২,৭৬,০০০/-(দুই লক্ষ ছিয়াত্তর হাজার) টাকা।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত আসামীরা একটি পারিবারিক সংঘবদ্ধ চোর চক্রের সদস্য এবং তারা দীর্ঘদিন যাবত বাংলাদেশের বিভিন্ন অভিজাত আবাসিক এলাকা ও আবাসিক হোটেলে কৌশলে প্রবেশ করে চুরি করে আসছিলো এবং তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা আছে বলে স্বীকার করে।

গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে কোতোয়ালী থানায় নিয়মিত মামলা রুজু হয়েছে।

চিটাগাং মেট্রোপলিটন পুলিশ পেইজ থেকে

মন্তব্য করুন

comments