X

সমন্বয়হীনতা আর দায়িত্বজ্ঞানহীনতাই জনদুর্ভোগের কারণ:সিটি মেয়র নাছির

ছবিঃ আর্কাইভ

সমন্বয়হীনতা, দায়িত্বজ্ঞানহীন সিদ্ধান্ত এবং অপরিকল্পিতভাবে ফ্লাইওভার নির্মাণের কারণে নগরীর কিছু জায়গায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

তিনি বলেন, বহদ্দারহাট ও স্টেশন রোডসহ নানা জায়গায় নালার ওপর ফ্লাইওভারের পিলার স্থাপন করায় পানি চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হচ্ছে।

রোববার (৩০ জুলাই) সকালে স্টেশন রোডের ফলমণ্ডি পরিদর্শনকালে এসব কথা বলেন মেয়র। এ সময় তিনি ওই এলাকার নালা থেকে মাটি ও আবর্জনা উত্তোলন কার্যক্রম প্রত্যক্ষ করেন এবং সম্প্রতি ভারীবর্ষণে সৃষ্ট জলাবদ্ধতায় ক্ষতিগ্রস্ত ফল ব্যবসায়ীদের কাছে তাদের দুঃখ-দুর্দশার কথা জানতে চান।সম্প্রতি ভারী বর্ষণে ফলের আড়ত এলাকা ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

মেয়র আরো বলেন, নগরীর সব সেবা প্রতিষ্ঠানের সমন্বয় ছাড়া শতভাগ নাগরিকসেবা নিশ্চিত করা কঠিন। নীতি-নির্ধারকদের দায়িত্বশীল আচরণ ও সুচিন্তিত পরিকল্পনা ও সমন্বয়ের মাধ্যমে প্রকল্প বাস্তবায়ন করলে জনদুর্ভোগ লাঘব করা সম্ভব।

১৯৯৫ সালের মাস্টারপ্ল্যান বাস্তবায়ন না হওয়ায় অপকল্পিত নগরায়ন জনদুর্ভোগ বাড়িয়েছে।

মেয়র রেলওয়ে মেনস সুপার মার্কেট ও ফলমণ্ডি এলাকাকে জলাবদ্ধতা থেকে মুক্ত করার লক্ষ্যে বিকল্প ড্রেনেজ ব্যবস্থা চালুর আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

তিনি বলেন, রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে বিকল্প ড্রেনেজ ব্যবস্থা করা হবে।

এ সময় চট্টগ্রাম জেলা ক্রীড়া সংস্থার অতিরিক্ত সাধারণ সম্পাদক এবং রেলওয়ে মেনস সুপার মার্কেটের প্রধান নির্বাহী শাহবুদ্দিন শামিম, ৩১ নম্বর আলকরণ ওয়ার্ড কাউন্সিলর তারেক সোলায়মান সেলিম, ৩৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব, চসিকের প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল মহিউদ্দিন আহমেদ, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. রফিকুল ইসলাম, মো. আনোয়ার হোছাইন, প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ শফিকুল মন্নান সিদ্দিকী যিশু, নির্বাহী প্রকৌশলী মো. ফরহাদুল আলম, জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আবদুর রহিম, নির্বাহী প্রকৌশলী সুদীপ বসাক, চট্টগ্রাম ফল ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আবদুল মালেক, সাধারণ সম্পাদক নাজিম উদ্দিন, সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. আলী আব্বাস খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য করুন

comments