X

রাউজানে নিজ কক্ষে বৃদ্ধকে শ্বাসরোধ এবং কুপিয়ে হত্যা

চট্টগ্রামের রাউজানে কদলপুর ইউনিয়নের নিজ বাড়ীর শোবার ঘরে রফিক আলম চৌধুরীকে (৭০) রশি দিয়ে হাত-পা, মুখ বেঁধে শ্বাসরোধ করে এবং কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।এ সময় দুর্বৃত্তরা তার শয়নকক্ষের আলমারি ভেঙে মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে যায়।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে এ ঘটনা ঘটে।তার পিতার নাম আব্দুল হাকিম চৌধুরী।

আজ শুক্রবার দুপুরে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করেছে। নিহত রফিক আলম কদলপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তসলিম উদ্দিন চৌধুরীর আপন চাচা।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,রফিক আলমের পুরনো পাকা ভবনের পাশে আরও একটি ভবন নির্মাণ চলছে।
দুপুরে নির্মাণ শ্রমিকরা কাজ করতে গেলে দরজা খোলা পেয়ে প্রবেশ করে রক্তাক্ত অবস্থায় হাত-পা বাঁধা লাশ পড়ে থাকতে দেখে কদলপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তার ভাতিজা তসলিম উদ্দিন চৌধুরী এবং পুলিশকে জানায়।পরে রাউজান থানা পুলিশ দুপুরে লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়।

নিহত রফিক আলম চৌধুরীর ভাতিজা ইউপি চেয়ারম্যান তসলিম উদ্দিন জানান, পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা বাসায় ছিলেন না। তারা শহরের বাসায় ছিলেন। ধারণা করছি রাতের কোন এক সময় চাচাকে হত্যা করা হয়েছে। তার শয়ন কক্ষে মুখে গেঞ্জি, হাত-পা গামছা ও প্লাষ্টিক রশি দিয়ে বাঁধা ছিল। খাটে রক্ত লেগে আছে।

তসলিম উদ্দিন চৌধুরী বলেন, তার চাচার সঙ্গে কারও কোনো শত্রুতা ছিল না। চাচার হত্যাকারীদের বিচার দাবি করেন তিনি।

রাউজান থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই নুর নবী বলেন, এটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড মনে হচ্ছে। এ হত্যাকান্ড তিন-চারজন ছাড়া সম্ভব নয়। ধারণা করা হচ্ছে কিছু করতে তাকে বাধ্য করা হয়েছে। প্রথমে ভয় দেখানো হয়েছে, তিনি বাধ্য না হওয়ায় শ্বাসরোধ হত্যা করা হয়েছে। হত্যাকারীরা তার পরিচিত হবে বলে ধারণা তার।

কারণ হিসেবে তিনি দেখছেন যেহেতু দরজা ভাঙা ছাড়া দুর্বৃত্তরা প্রবেশ করেছে। এটি চুরি কিংবা ডাকাতির জন্য প্রবেশ বলে মনে হচ্ছে না। যেহেতু টেবিলের উপর রক্তাক্ত অবস্থায় জায়গা-জমির দলিলপত্র পাওয়া গেছে।

রাউজান থানার ওসি কেফায়েত উল্লাহ বলেন, ‘রফিক আলমের সঙ্গে জায়গা-জমি নিয়ে এলাকায় বিরোধ রয়েছে। জায়গা জমির বিরোধ সংক্রান্ত অভিযোগ  থানায় রয়েছে। এ ঘটনায় মামলা করার প্রস্তুতি চলছে।’

মন্তব্য করুন

comments