বান্দবানে স্কুল শিক্ষককে কুপিয়ে হত্যা;গ্রেফতার ০৪

39
শেয়ার

বান্দরবানের রুমা উপজেলায় জাতিসংঘের উন্নয়ন কর্মসূচি (ইউএনডিপি) পরিচালিত স্কুলের শিক্ষক নুশৈমং মারমাকে (৩৫) কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

বুধবার সন্ধ্যায় রুমা উপজেলার পাইন্দু ইউনিয়নের পাইন্দু উজানী পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। নুশৈমং মারমা পাইন্দু উজানী পাড়ার বাসিন্দা। তিনি স্থানীয় একটি বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ছিলেন।

বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার পাইন্দু ইউনিয়নের উজানীপাড়া থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ এবং স্থানীয়রা জানান, বুধবার বিকেলে পাইন্দু উজানী পাড়ার একটি জুমের জমিতে যান নুশৈমং। সন্ধ্যার পরেও নুশৈমং বাড়ি ফিরে না আসলে পরিবারের লোকজন তাকে খুঁজতে যান।

তারা জানান, রুমা উপজেলার পাইন্দু ইউনিয়নের উজানীপাড়ার এলাকায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে বুধবার রাতে ইউএনডিপি পরিচালিত স্কুলের শিক্ষক নুশৈ মং মারমাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে এবং পিটিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে গতকাল সকালে লাশ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় পুলিশ ওই এলাকা অভিযান চালিয়ে অস্ত্রসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিরা হলেন উজানীপাড়ার কারবারি নুশৈমং মারমার চাচা ক্যঅংপ্রু মারমা (৫৮), তাঁর ছেলে হ্লাসিংমং মারমা (৩৯), মংবাসিং মারমা (৩০) ও মংক্যহ্লা মারমা (২৮)। তাঁদের কাছ থেকে দেশীয় তৈরি দুটি এলজি রাইফেলও উদ্ধার করা হয়েছে।

নুশৈমং বড় ভাই মংরেঅং মারমা জানান, উজানী পাড়ার জুমের জমি নিয়ে বিরোধে তার ভাইকে হত্যা করা হতে পারে।

নিহতের স্ত্রী ছোমে মারমা বলেন, ‘গ্রামের কয়েকজন ব্যক্তির সঙ্গে আমার স্বামীর বিরোধ ছিল। পূর্ব শত্রুতার জেরে তাঁকে হত্যা করা হয়েছে।’

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে রুমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শরিফুল ইসলাম জানান, পাহাড়ে জুমঘর থেকে এলাকায় ফেরার সময় নুশৈ মং মারমাকে হত্যা করা হয়েছে। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এ ঘটনা ঘটে থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ওসি আরো জানান, এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী ছোমে মারমা বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা করেছেন।

মন্তব্য করুন

comments