মোবাইল ব্যাংকিং; হাজার কোটি টাকা ছাড়াল দৈনিক লেনদেন

53
শেয়ার
মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে লেনদেন বেড়েছে

মোবাইল ব্যাংকিংয়ের দৈনিক লেনদেন হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়েছে। সদ্য শেষ হওয়া জুন মাসে মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসের (এমএফএস) মাধ্যমে দৈনিক ১ হাজার কোটি ২৮ লাখ টাকা লেনদেন হয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে জানা যায়, মে মাসে দৈনিক লেনদেন হয়েছিল ৮৪৪ কোটি ২৩ লাখ টাকা। আর জুনে ১৫৬ কোটি ৫ লাখ টাকা বেড়ে তা দাঁড়ায় ১ হাজার কোটি ২৮ লাখ টাকায়। এই হিসেবে মে মাসের তুলনায় জুনে লেনদেন বেড়েছে ১৮ দশমিক ৪৮ শতাংশ।

প্রতিবেদনে দেখা গেছে, সমাপ্ত অর্থবছরের জুনে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে মোট লেনদেন হয়েছে ৩০ হাজার ৯ কোটি টাকা। যেখানে মে মাসে লেনদেন হয়েছিল ২৬ হাজার ১৭১ কোটি ২৮ লাখ টাকা। মাসের ব্যবধানে লেনদেন বেড়েছে প্রায় ১৫ শতাংশ। জুনে মোবাইল ব্যাংকিংয়ে লেনদেনকৃত অর্থের মধ্যে ১২ হাজার ৩৩৬ কোটি ৮৭ লাখ টাকা ক্যাশ ইন হয়েছে এবং ১১ হাজার ৪২৭ কোটি ১৭ লাখ টাকা ক্যাশ আউট হয়েছে। বাকি টাকা পি টু পি, বেতন পরিশোধ ও বিল পরিশোধের মাধ্যমে লেনদেন হয়েছে।

মোবাইল ব্যাংকিংয়ের কারণে গত এক বছর ধরে রেমিট্যান্স প্রবাহ কমেছে। যার অন্যতম কারণ হুন্ডির মাধ্যমে লেনদেন। এছাড়া এই পদ্ধতিতে অবৈধ জায়গায় অর্থায়ন করা হচ্ছে-দীর্ঘদিন ধরে এমন আশংকা করা হলেও দিন দিন বেড়েই চলেছে মোবাইলের মাধ্যমে আর্থিক লেনদেন। বৈধ পথে অর্থ আদা-প্রদান বাড়াতে মোবাইলে লেনদেনের সীমা বেঁধে দেয়া হলে তা কমেনি।

বাংলাদেশ ব্যাংকের এক প্রতিবেদনে এসব কথা বলা হয়। মোবাইল ব্যাংকিংয়ের লাগাম টানতে এবছরের জানুয়ারি মাসে লেনদেনে সীমা বেঁধে দিয়েছিল বাংলাদেশ ব্যাংক। এই সীমায় একটি একাউন্ট থেকে সর্বোচ্চ ১৫ হাজার ও মাসে সর্বোচ্চ ১ লাখ টাকা জমা দেয়ার বিধান করা হয়। দিনে সর্বোচ্চ ২ বার ও মাসে ২০ বার টাকা জমা দেয়ার নিয়ম করা হয়।

এছাড়া নগদ অর্থ উত্তোলনের ক্ষেত্রে দিনে সর্বোচ্চ ১০ হাজার ও মাসে ৫০ হাজার টাকা উত্তোলনের সুযোগ রাখা হয়। পাশাপাশি একটি হিসাবে অর্থ জমার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত উত্তোলনের সুযোগ রাখা হয়।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্যমতে, বর্তমানে ১৭টি ব্যাংক মোবাইল ব্যাংকিংয়ের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে। সারাদেশে এসব ব্যাংকের ৭ লাখ ৫৮ হাজার ৫৭০টি এজেন্ট রয়েছে। মে মাসের তুলনায় জুনে এজেন্ট বেড়েছে ১ দশমিক ৬২ শতাংশ।

মন্তব্য করুন

comments